Tuesday, November 24গণ মানুষের কথা বলে...

ভৈরবের শিমুলকান্দির এক বাড়ীতে ডাকাতি, জনমনে আতঙ্ক।

মোঃ ছাবির উদ্দিন রাজু

গত ১৩ নভেম্বর শুক্রবার রাত ১টার দিকে উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়নের ইমামেরচর গ্রামের ওয়াদুদ মিয়ার বাড়িতে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। পরিবারটির দাবি, ডাকাত দল তাঁদের বাড়ি থেকে চার ভরি
স্বর্ণালংকার ও প্রায় এক লাখ টাকা নিয়ে গেছে।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ওয়াদুদ মিয়ার দুই ছেলে শিপু মিয়া ও পান্নু মিয়া প্রবাসে থাকেন। তাঁদের ঘরটি আধা পাকা। রাত ১টার দিকে প্রধান ফটক ভাঙার সময়
ওয়াদুদের ঘুম ভেঙে যায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই দরজা ভেঙে ডাকাতেরা ঘরে ঢােকে। প্রথমে ওয়াদুদ ও তাঁর স্ত্রী রানু বেগমকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বেঁধে ফেলে। তারপর ঘর থেকে চার ভরির বেশি স্বর্ণালংকার ও ৮০ হাজার টাকা লুটে নেয় তারা। পাশের কক্ষে পরিবারের
সদস্যদের নিয়ে ভাড়ায় থাকেন স্থানীয় মসজিদের ইমাম ইয়াসিন আরাফাত। পরে ওই ইমামকে জিম্মি করে তাঁর ঘর থেকে ৮ হাজার ৬০০ টাকা নিয়ে গেছে ডাকাতদল।ওয়াদুদ বলেন, ঘরে ঢােকে সাতজন। বাইরেও ছিল
কয়েকজন। ঘরে এসেই অস্ত্রের মুখে হাত-পা বেঁধে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারধর করে। শেষ প্রাণ বাঁচাতে সব কিছু নিয়ে যেতে সহযোগিতা করেছি।

ইমাম ইয়াসিন আরাফাত বলেন,তাঁর কাছে নেওয়ার টাকা গুলো মসজিদ তহবিলের।

এলাকাবাসী ও মামলার সূত্রে আরো জানা যায়, এর আগে ২৩ অক্টোবর একই গ্রামের নবী হােসেন মিয়ার বাড়িতে অজ্ঞাত ৩/৪ জন চোরের দল কেসিগেইটের তালা ও দরজা ভেঙ্গে  আধা ভরি স্বর্ণালংকার, ৩ টি মোবাইল সেট,একটি মটর সাইকেল ও ১ লাখ ৭০ হাজারটাকা নিয়ে গেছে।একজন গ্রেফতার হয়, তার নাম সুমন মিয়া(২৬) ভৈরব থানা মামলা নং ৩৮,তাং ২৬/১০/২০২০ এ বিষয়ে গ্রেপ্তারকৃত আসামির পিতা-মাতা স্ত্রী আজ ১৪/১১/২০২০ শনিবার সকালে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ভৈরব শাখা  কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন সুমন মিয়া সম্পূর্ণ নির্দোষ, তাকে পরিকল্পিতভাবে মামলায় জড়ানো হয়েছে। সুমনের বাবা-মা, আরো বলেন যে আমার ছেলে তো জেলে এখন কারা ডাকাতি করছে। আমার ছেলেকে  পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে, আমার ছেলে সুমনের নিঃশর্ত মুক্তি চাই এবং যারা আমার ছেলেরে মিথ্যা  মামলা দিয়ে ফাঁসাতে চেয়েছে তাদের বিচার চাই আমরা।

এ বিষয়ে মামলার বাদী মোঃ নবী হোসেন  ও ঘরের সদস্যদের কে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মামলার এজাহারের সাথে সাংঘর্ষিক মূলক তথ্য প্রদান করে।

গত শুক্রবার রাতের ডাকাতির বিষয়ে জানতে চাইলে ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ মােঃ শাহিন বলেন,  ভৈরবে কোথাও ডাকাতি হয়েছে, এমন তথ্য তাঁর জানা নেই।তবে এ বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *