Thursday, November 26গণ মানুষের কথা বলে...

ভৈরব শিমুলকান্দির ভ্যান চালক সুমন মিথ্যা চুরি মামলায় অভিযুক্ত আসামীর পরিবার সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন নিরঅপরাধ ছেলের মুক্তির দাবি নিয়ে।

রিপোর্টঃছাবির উদ্দিন রাজু(ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি)

কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার শিমুল কান্দি ইউনিয়নের ইমামের চর গ্রামের বাসিন্দা ভ্যানচালক সুমনের বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় ২৬।১০।২০২০ইং তারিখে নবী হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন।

২৩।১০।২০২০ইং রাত ২টা সময় নবী হোসেনের বাসায় চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ভৈরব থানায় ৩ দিন পর ২৬।১০।২০২০ তারিখে মামলা নং৩৮ ধারা ৪৫৭/৩৮০ দঃবিঃ। নবী হোসেন অভিযোগ পত্রে বলেছেন সুমন মিয়া খারাপ লোক চুরি চামারী করে থাকে এলাকায়।

গত ২৩।১০।২০২০ রাতে বাসায় ঘুমিয়ে ছিলেন পরিবার সদস্য সবাই হঠাৎ নবী হোসেনের মেয়ে হাফছা বেগম(১৪)ও ভাতিজী আফছানা মিমি (১২) পাশের রুমে আলমারী ভাঙ্গার শব্দ শুনে বিছানা থেকে উঠে রুমে লাইট জ্বালিয়ে চোর দেখতে পেয়ে চিৎকার করে।

চিৎকার শুনে দৌড়ে এসে চোর কে আটক করার চেষ্টা  করলে দস্তা দস্তি করে পালিয়ে যায় সাথে বাদী নবী হোসেন তার স্ত্রী লুৎফর নাহার তার ছেলে জুনাইদ (১৬) এসে চোর কে পালিয়ে যেতে দেখে দ্রুত মটর সাইকেল ও প্রাইভেট কার নিয়ে।

আসামী সুমনের পরিবার মানবাধিকারে অভিযোগ করলে মানবাধিকার সংস্থা তদন্ত করেন বাদী নবী হোসেন বাড়ী থাকা লোকদের  ভিডিও তে নবী হোসেন বলেছেন উনাকে জিম্মি করে সুমনের সঙ্গীয় চোর নিয়ে আলমারি ও বিছানার নিচে থাকা টাকা নিয়ে যায় এবং উনার স্ত্রী লুৎফর নাহার বলেন এক রুমে হাতে অস্ত্র নিয়ে উনাদের জিম্মি করে মালামাল নিয়ে যায় ছেলে জুনাইদ বলেন আমাদের সবাইকে এক রুমে জিম্মি করে দেশীয় অস্ত্রের মুখে পরে হাত পা বেধে ফেলে আমাদের মালামাল ও মোটরসাইকেল নিয়ে যেতে দেখেছে।

মানবাধিকার ও সাংবাদিকদের ভিডিওতে যা বলা হয়ে তার সাথে থানায় দায়ের কৃত অভিযোগের কোন মিল পাওয়া যায়নি অভিযোগে  বলা হয়েছে দেখার পর দৌড়ে পালিয়ে গেছে কিন্তু সাক্ষাৎকার দিয়েছেন অস্ত্রের মুখে জিম্মি।

সুমনের পরিবার ও এলাকার সাধারণ জনগণ আগে সুমনের বিষয়ে কোন অভিযোগ নেই খুবি ভালো ছেলে বলে জানেন একজন ভ্যান  চালক সুমন বাবা আচার বিক্রেতা হকার। সুমন বাদীর বাড়ীতে অনেক দিন যাবৎ কাজ করে খাওয়া দাওয়া করে পারিশ্রমিক নিযেছেন,এখন প্রশ্ন বাদী কেন চোর ও খারাপ প্রকৃতির লোক নিয়ে কাজ করান? জনমনে প্রশ্ন।

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ভৈরব উপজেলা শাখায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে  সুমনের বাবা-মা, স্ত্রী-সন্তান সুবিচার চাই সরকার ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *